Pages

Friday, 8 February 2013

Ashish Nandy`s Jaipr lit festival hate campaign against OBC, SC and ST Communities being protested all over Bengal.


Nagraj Chandal BSP Kalayani Ghosh Para wing will organize a protest rally against the hate 

speech of ASHIS NANDI. They will give a deputation to the SDO. This programme will be 

continued from 10 am to 4 pm. Friend are requested to join in this venture. Jai Bhim, Jai 

Bharat. BSP jindabad.

Sharadindu Biswas informed me that protest rallies are being organsed in scores of blocks in 

Bengal.He informed that Bahujan Samaj Party is planning protest rallies on large scale all over 

Bengal.



Saradindu Biswas writes:

It is the right time to condemn the conspiracy against MULNIBASI BAHUJAN. This hate campaign by Ashis Nandi was not just a slip of tongue. It was preplanned one. It was just a partial eruption of a dormant caste volcano in  Bengal covered with fake rationality. 
Any how I am supporting this initiations by Dalit Samanya Samity guided by Nitish Biswas. 

On 13 th February at 6 PM,Dalit intelectuals of Bengal have organised a meeting to condemn Ashish Nandy`s Jaipr lit festival hate campaign against OBC, SC and ST Communities in Mahabodhi Society, Kolkata.Dr Nitish Bisas from Dalit Samanyaya Samiti informed and requested all to join the event.

পশ্চিমবঙ্গে বাঙালীর কোন ক্ষমতায়ন হয়নিঃ 
আশিস নন্দী মহাশয়কে ধন্যবাদ যে তিনি শাসক শ্রেণীর পক্ষ নিয়েও পশ্চিমবঙ্গের আর্থ সামাজিক বিকাশের প্রকৃত সত্যটি উন্মোচন করে দিয়েছেন। জয়পুর করপোরেট সাহিত্য উত্সবে "সংরক্ষন বিরোধী মঞ্চে" তিনি বলেছেন যে, ভারতবর্ষে দুর্নীতির জন্য দায়ী হল এসসি, এস টি ও ওবিসি মানুষেরা । ... গত একশো বছরে এসসি/এসটি ও ওবিসিরা পশ্চিমবঙ্গে শাসন ক্ষমতায় নেই তাই এখানে দুর্নীতি কম। অর্থাৎ তিনি পরিষ্কার করে উল্লেখ করেছেন যে, গত একশো বছর ধরে পশ্চিম বাংলায় এসসি/এসটি ও ওবিসিদের কোন আর্থ-সামাজিক বা রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন হয়নি। ক্ষমতায়ন হয়েছে এই ৩ ক্যাটেগোরির বাইরের মানুষদের। 
আশিস নন্দী মহশয়কে আরো ধন্যবাদ জানানো যেত যদি তিনি এই তালিকার সাথে ধর্মীয় সংখ্যালঘুদেরও জুড়ে দিতেন। তবেই বাংলার বহুজনকে চিহ্নিত করতে সুবিধা হত। 
সঙ্গত কারণেই প্রশ্ন এসে যায় যে, এই ৩ ক্যাটেগোরির বহুজন সমাজের বাইরের মানুষ কারা? 
এবং বাংলার আর্থ-সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলে তাদের পরিচয় কি? বা অবস্থান কোথায়? 
সেন্সাস, ২০০১ অনুশারে পশ্চিমবঙ্গে এসসি/এসটি ও ওবিসিদের জনসংখ্যাগত অবস্থান নিম্নরূপঃ 
এসসি - মোট জনসংখ্যার- ২৩% 
এসটি- মোট জনসংখ্যার- ৫.৫%
ওবিসি- মোট জনসংখ্যার- ৬০ % এর বেশী। 
ব্রাহ্মণ - মোট জনসংখ্যার- ২ %
কায়স্থ/বদ্দি -মোট জনসংখ্যার- ৩%
অন্যান্য- মোট জনসংখ্যার- ৬.৫%
এখানে অন্যান্য জনসংখ্যার মধ্যে আছে ধর্মীয় সংখ্যালঘু এবং অবাঙ্গালী মানুষেরা। যাদের অধিকাংশই আশিস নন্দীর উল্লেখিত শাসক শ্রেনীর মানুষ নয়। 
অর্থাৎ নির্দ্বিধায় একথা বলা যায় যে,পশ্চিমবঙ্গের ৯৫% মূলনিবাসী বহুজন বাঙালীর ১০০ বছরের মধ্যে কোন ক্ষমতায়ণ হয়নি। ক্ষমতায়ণ হয়েছে মাত্র ৫% মানুষের, যারা ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে হয় আনিত,নতুবা অনুপ্রবেশকারী অথবা বহিরাগত। 
আশিস নন্দী কথিত ১০০ বছর নয়, বরং পাল যুগ অবসানের পরবর্তী কাল থেকে বাংলার মূলনিবাসী বহুজন কতিপয় অবাঙ্গালী শোষকদের কাছে পদানত,শৃঙ্খলিত অপমানিত।